October 29, 2020, 2:29 am

প্রতারক সাহেদকে নিয়ে ফের স্পটে র‌্যাব

শাহিনুর ইসলাম:: দেশব্যাপী আলোচিত মহাপ্রতারক রিজেন্ট হাসপাতালের পরিচালক মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবারো তাকে গ্রেপ্তারস্থল শাঁখরা কোমরপুর সীমান্তে নিয়ে এসেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা ১১ মিনিটে কোমরপুরের লাবন্যবতী নদীর বেইলী ব্রীজের ওপর নিয়ে আসে র‌্যাব সদস্যরা। এরপর উৎসুক সাধারণ মানুষকে সরিয়ে এবং স্থানীয় সাংবাদিকদের ব্রীজ থেকে নির্দিষ্ট দুরত্বে সরিয়ে ৫-৭ মিনিট সাহেদের সাথে কথাবার্তা বলে আবারও র‌্যাব সদস্যরা তাকে গাড়ীতে ওঠায়।
এসময় সাহেদের মুখমন্ডল ছিল হেলমেটে ঢাকা, গায়েছিল গেঞ্জি ও র‌্যাবের নিরাপত্তা জ্যাকেট।
প্রথমে সাহেদকে বহনকারী সাদা রঙয়ের মাইক্রো বাসটিকে লাবণ্যবতীর ব্রীজের ওপর নেয়া হয়। সেখানে তাকে নামিয়ে কিছুক্ষন কথা বলার পর আবার সেখান থেকেই সাহেদকে গাড়িতে উঠিয়ে ফের খুলনার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় র‌্যাব। এসময় তদন্তের স্বার্থে র‌্যাব উপস্থিত সংবাদকর্মীদের কোন ধরনের প্রশ্ন করার চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে বলেন।
উল্লেখ্য, মহামারী করোনা ভাইরাসের টেস্ট জালিয়াতি ও প্রতারনার দায়ে চলতি মাসের প্রথম দিকে সাহেদের মালিকানাধীন ঢাকার রিজেন্ট হাসপাতালের দুটি শাখায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান জাল সনদ উদ্ধার করে র‌্যাব।
এঘটনায় রিজেন্ট হাসপাতালের দুটি শাখা সিলগালা এবং রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদ ও এমডিসহ বেশ কয়েকজনকে আসামী করে র‌্যাবের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়। এরপর থেকে কয়েকদিন দেশের বিভিন্ন জেলায় পালিয়ে ছিলেন মহাপ্রতারক সাহেদ।
পরবর্তীতে গত ১৫ জুলাই (বুধবার) ভোররাতে ভারতে পালানোর প্রস্তুতিকালে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার শাখরা কোমরপুর সীমান্তের লাবণ্যবতী নদীর পাশ থেকে বোরকা পরা অবস্থায় একটি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলিসহ মহাপ্রতারক সাহেদ করিমকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা।
এঘটনায় দেবহাটা থানায় সাহেদসহ তিন জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করে র‌্যাব। মুলত ওই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাহেদকে সম্প্রতি ১০ দিনের রিমান্ডে খুলনা র‌্যাব-৬ এর কার্যালয়ে নেয়ার পর বৃহষ্পতিবার বিকালে তাকে আবারো আটকস্থলে নিয়ে আসা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর