November 23, 2020, 4:15 pm

রাস্তার উপর মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ড: প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা, প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ মেইন সড়কের কুলিয়া আশুমার্কেট ও কুলিয়া বাজার মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডের দখলে। চালকেরা কোন নিয়মনীতি না মেনে সড়কের যেখানে সেখানে তাদের মাহিন্দ্রা থামিয়ে যাত্রী উঠানামা করাচ্ছেন। চলাচলরত অসংখ্য মাহিন্দ্রার কারনে কুলিয়ায় প্রতিনিয়ত অসহনীয় যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা। কুলিয়া বাজারের যেখানে সেখানে রাখা হচ্ছে মাহিন্দ্র, সাধারন মানুষের চলাচলের চরম-দূভোগপোহাতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। দেখার কেউ নেই? কিন্তু বর্তমানে বাজারটি অবস্থা খুব খারাপ কোথায় বাজার সেটাও বোঝা যায় না পাশে থাকা মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডের কারনে। দেখে বোঝার উপায় নেই, এখানে বাজার, রাস্তা নাকি মাহিদ্রা স্ট্যান্ড? ফুটপাত ও সড়কের কিছু অংশ দখল করে আছে মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডটি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষেরা চলাচল করছে আবার সেখানে মাঝে মধ্যে দূর্ঘটনা ঘটছে। ফুটপাতে জায়গা না পেয়ে বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়কের উপর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে পথচারীদের। শনিবার (২৪অক্টোবর) সরেজমিনে এমনই দৃশ্য দেখা গেছে। মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডের কারণে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করা সাধারণ মানুষকে। কোন কোন সময় দেখা যায় চৌকিদাররা সেখানে গিয়ে যানজট দূর করছে আবার এ্যাম্বুলেন্স আটকা পড়ে আছে সে দৃশ্যেও দেখা যায়। যার ফলে রোগীটির জীবনের ঝুকি হয়ে দাড়ায়। ফুটপাত কিংবা সড়কে এসবের উৎপাত বেড়ে গেলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেন না। ভুক্তভোগীরা জানান, কুলিয়ায় চলাচলরত ইজিবাইক ও মাহিন্দ্রা চালকেরা কোন নিয়ম শৃংখলা তোয়াক্কা না করে সড়কে ইচ্ছা মত ঘুরাতে যায়। আবার রাস্তা ভাঙাচোরা অংশ পরিহার করে ভালো অংশ দিয়ে যেতে চায়। ফলে তারা ঘন ঘন রাস্তায় এপাশ ওপাশ করে পথ চলে। কোমলমতী শিক্ষাথীরা এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। এমতবস্থায় মোটর সাইকেলসহ দ্রুত গতির বাস ও পরিবহন পেছন থেকে আগে উঠতে গেলে ধাক্কা লেগে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। এবিষয়ে কুলিয়া বাজার কমিটির সভাপতি এস.এম মজনুর রহমান জানান, অনেক দিন ধরে কুলিয়া বাজারে মাহিন্দ্রা স্ট্যান্ডটির কারনে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে, কখনো দূর্ঘটনা ঘটছে। আমি চাই তারা নিদিষ্ট কোন স্থানে তাদের স্ট্যান্ডটি নিয়ে যাক। এছাড়া প্রতিনিয়ত এখনে যাত্রীরা হয়রানী হচ্ছে কখনো দেখা যায় রাস্তার উপর থেকে যাত্রীরা উঠানামা করছে আবার কখনো যাত্রীদের টানা হেচড়া করা হচ্ছে মাহিন্দ্রে উঠানোর জন্য। তিনি আরো জানান আশু-মার্কেট টু রবিউল ডাক্তারের বাড়ির পথ পর্যন্ত দীর্ঘ রাস্তা যার দুই পাশে এলোমেলো ভাবে মাহিন্দ্রা রাখা হয়। যার ফলে যে কোন মূহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। এমতাবস্থায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ সময়ের দাবী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর